Football News

কাতার বনাম জর্ডান ফুটবল হেড টু হেড পরিসংখ্যান

কাতার বনাম জর্ডান হেড টু হেড পরিসংখ্যান

ফুটবল ইতিহাসে নিজেদের নাম লিখিতে ভুল করেনি জর্ডান ফুটবল দল। এএফসি এশিয়ান কাপে প্রথম বারের মতো ফাইনালে উঠেছে এশিয়ার দলটা। সেমিফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়াকে ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে এই শ্রেষ্ঠের ফাইনালে লড়াইয়ে পা রাখে জর্ডান। AFC Asian Cup Final জর্ডানের প্রতিপক্ষ বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন কাতার। বর্তমানে রাজত্ব করা দলটা ঠিকে রাখতে চাই আসন।

কাতার বনাম জর্ডান ফুটবল হেড টু হেড পরিসংখ্যান
কাতার বনাম জর্ডান ফুটবল হেড টু হেড পরিসংখ্যান

উপর দিকে প্রথম বারের মতো এশিয়ান কাপের ফাইনালে উঠা দলটাও আশাবাদী চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় ফাইনাল খেলতে যাচ্ছে কাতার। এশিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের জন্য তাদের মুখোমুখি হতে হবে জর্ডানের। শনিবার রাতে লুসাইল স্টেডিয়ামে হবে প্রেস্টিজিয়াস ফাইনাল। প্রথম বার ফাইনালে খেলা দলটা নিজেদের ভাগ্যে এসেছে বলল ভুল হবে কারণ পুরোটা আসর জুড়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে ভক্ত-সমর্থকদের দিয়েছে উল্লাস।

এএফসি এশিয়ান কাপ ২০২৩ এবারের টুর্নামেন্টে এখনো অপরাজিত রয়েছে কাতার ফুটবল দল। কিন্তু কাতারে টুনামেন্ট শুরু হওয়ার আগে প্রীতি ম্যাচে জর্ডানের কাছে হারে কাতর। তবুও কোনো ভাবেই ফাইনালে প্রতিপক্ষ্যের কাছে হারতে চাইবে না দলটা।

ফাইনালে কাতার নির্বর করবে আকরাম আফিফের প্রতি। তিনি আলমোয়েজ আলীর পাশাপাশি কাতারের সেরা খেলোয়াড়, এখন পর্যন্ত পাঁচটি গোল করেছেন এবং তার এখনও সুযোগ রয়েছে টুর্নামেন্টের গোল্ডেন বুট জেতার। তিনি তার গতি, কৌশল এবং ড্রিবলিং ক্ষমতার জন্য পরিচিত লাভ করে। তার পারফরম্যান্স হোম সাইডের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল এবং সে একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ।

হেড টু হেড  ২৩
কাতার ১২
জর্ডান
কাতার বনাম জর্ডানের পরিসংখ্যান নিচে দেওয়া হয়েছে এখানে কাতার ও জর্ডান ফুটবল দল যেসব টুনার্মেন্টে অংশগ্রহণ করেছে তার সকল রেজাল্ট উল্লেখ করা হয়েছে। Jordan vs Qatar head to head  মুখোমুখি হয়েছে ২৩ বার। সেখানে কাতার সর্বোচ্চ ১২ বার জয় পায় ও জর্ডান ৬টায়। এছাড়া ৫টা ম্যাচ ড্র হয়।

কাতার বনাম জর্ডান ফুটবল হেড টু হেড পরিসংখ্যান

তারিখ ম্যাচ রেজাল্ট স্কোর টুর্নামেন্ট
২৭ জানুয়ারি ১৯৮৯ জর্ডান বনাম কাতার ড্র ১-১ ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ
৮ এপ্রিল ২০০০ কাতার বনাম  জর্ডান ড্র ২-২ এএফসি এশিয়া কাপ
২৭ জুলাই ২০০৬ জর্ডান বনাম কাতার ড্র ০-০ ওয়েস্ট এশিয়ান ফুটবল  ফেডারেশন  চ্যাম্পিয়নশিপ
৮ অক্টোবর ২০১২ কাতার বনাম জর্ডান ড্র ১-১ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
১০ অক্টোবর ২০১২ কাতার বনাম জর্ডান ড্র ১-১ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
৮ সেপ্টেম্বর ১৯৮০ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ৩-০ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
২১ সেপ্টেম্বর ১৯৮৪ জর্ডান বনাম কাতার জর্ডানের হার ০-২ এএফসি এশিয়ান কাপ
১২ এপ্রিল ১৯৮৫ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ
৫ জুলাই ১৯৮৫ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ ফিফা আরব কাপ
৬ জানুয়ারি ১৯৮৯ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ১-০ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ
২৬ সেপ্টেম্বর ১৯৯৮ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ ফিফা আরব কাপ
৫ জানুয়ারি ২০০১ কাতার বনাম  জর্ডান জর্ডানের হার ৩-১ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
৬ জানুয়ারি ২০০১ কাতার বনাম  জর্ডান জর্ডানের হার ৩-১ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
১৭ নভেম্বর ২০০৪ কাতার বনাম  জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ
১৬ মার্চ ২০০৮ কাতার বনাম  জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
৭ জানুয়ারি ২০১৪ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ আন্তর্জাতিক  ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
২৩ ডিসেম্বর ২০১৮ কাতার বনাম জর্ডান জর্ডানের হার ২-০ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
৬ সেপ্টেম্বর ১৯৮০ কাতার বনাম জর্ডান জয় ০-১ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
১৫ মার্চ ১৯৮৫ জর্ডান বনাম কাতার জয় ১-০ ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ
১২ মার্চ ১৯৯৩ কাতার বনাম  জর্ডান জয় ১-২ আন্তর্জাতিক ফ্রেন্ডলি ম্যাচ
১৬ আগস্ট ১৯৯৯ জর্ডান বনাম কাতার জয় ৩-০ পেন আরব কাপ
৩১ মার্চ ২০০৪ জর্ডান বনাম কাতার জয় ১-০ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ
১৩ আগস্ট ২০০৪ জর্ডান বনাম কাতার জয় ৩-০ ওয়েস্ট এশিয়ান ফেডারেশন  চ্যাম্পিয়নশিপ

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপে জর্ডান বনাম কাতার হেড টু হেড পরিসংখ্যান

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে মোট ৬ বার জর্ডানের সঙ্গে লড়াই করেছে কাতার। ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপে কাতার ও জর্ডানের হেড টু হেড পরিসংখ্যান দেখলে কাতারকে এগিয়ে রাখা যায় কারণ ছয় ম্যাচে তিনটায় জয় নিশ্চিত করে ও দুইটা ম্যাচ হারে বাকি একটি ড্র হয়।

এএফসি এশিয়ান কাপে কাতার বনাম জর্ডান পরিসংখ্যান

১৯৮৪ সালে প্রথম বার কাতার ও জর্ডান মুখোমুখি হয়েছে। ওই সময় থেকে বর্তমানন পর্যন্ত মাত্র দুইবার এএফসি এশিয়ান কাপে মুখোমুখি হয়েছে Jordan vs Qatar. তাদের দুইবারের দেখায় শক্তমত্তার দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে কাতার একটি ম্যাচ জয় পায় বাকিটা ড্র হয়। সুতরাং AFC Asian Cup পরিসংখ্যান দেখে কাতারকে এগিয়ে রাখছে ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page